• ঢাকা
  • শুক্রবার, ২৪শে মে, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ, ১০ই জ্যৈষ্ঠ, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
প্রকাশিত: ২০ এপ্রিল, ২০২৩
সর্বশেষ আপডেট : ২০ এপ্রিল, ২০২৩

কৃষক লীগের গুরুত্ব অনুধাবনের অনুরোধ মতিয়া চৌধুরীর

সংসদ উপনেতা বেগম মতিয়া চৌধুরী বলেছেন, এ দেশের সংখ্যাগরিষ্ঠ কৃষককে স্বীকৃতি দিয়ে বাংলাদেশ কৃষক-শ্রমিক আওয়ামী লীগ (বাকশাল) প্রতিষ্ঠা করেছিলেন বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান। এই কৃষক লীগের যে কতটা গুরুত্ব, তা কৃষক ও সাধারণ মানুষকে অনুধাবন করার জন্য অনুরোধ জানাচ্ছি।

বুধবার (১৯ এপ্রিল) কৃষক লীগের ৫১তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উপলক্ষে বঙ্গবন্ধু এভিনিউতে আওয়ামী লীগের কার্যালয়ে ঈদ উপহার বিতরণী অনুষ্ঠানে এসব কথা বলেন তিনি।

আওয়ামী লীগের সভাপতিমণ্ডলীর সদস্য মতিয়া চৌধুরী বলেন, ‘আজকে আমার বারবার মনে হয়, একসময় জমি বেশি ছিল মানুষ কম ছিল। কিন্তু এদেশ খাদ্য ঘাটতির মধ্য দিয়ে যাচ্ছিল। শুধু তাই নয়, বারবার বন্যা, যুদ্ধের ক্ষত নিয়ে বঙ্গবন্ধু সামনের দিকে এগোনোর চেষ্টা করেছিলেন।’

তিনি বলেন, ‘শেখ হাসিনার দিক নির্দেশনা নিয়ে কৃষক সমাজকে সংঘটিত ও সংঘবদ্ধ করে আমাদের খাদ্যে যে স্বয়ংসম্পূর্ণতা অর্জন করেছি, সেটাকে আরও বলিয়ান, আরও সমৃদ্ধশালী করাটাই হোক আজকে কৃষক লীগের শপথ। আমাদের দেশে কৃষকের যে শক্তি, যে উর্বর মাটি, আমাদের যে সহনশীল নেতৃত্ব, সেই নেতৃত্বে দেশকে এগিয়ে নিতে হবে।’

অনুষ্ঠানে আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক আ ফ ম বাহাউদ্দিন নাছিম বলেন, ‘কৃষক ও কৃষিজীবীদের জন্য বাংলাদেশ আজ খাদ্যে স্বয়ংসম্পূর্ণ। খাদ্যের জন্য আমাদের বিশ্বের দ্বারে দ্বারে ঘুরতে হয় না।’ সার, বীজ, বিদ্যুতের জন্য বিএনপি-জামায়াত জোটের বিরুদ্ধে কৃষকদের সঙ্গে নিয়ে কৃষক লীগের আন্দোলন লড়াই সংগ্রামে শহীদ নেতাদের প্রতি তিনি কৃতজ্ঞতা জ্ঞাপন করেন।

কৃষক লীগের সভাপতি সমীর চন্দের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে আরও বক্তব্য রাখেন- আওয়ামী লীগের কৃষিবিষয়ক সম্পাদক ফরিদুন্নাহার লাইলী, স্বেচ্ছাসেবক লীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি গাজী মেজবাউল হক সাচ্চু, সাধারণ সম্পাদক আফজালুর রহমান বাবু, কুষক লীগের সাধারণ সম্পাদক উন্মে কুলসুম স্মৃতি প্রমুখ।

আরও পড়ুন