• ঢাকা
  • মঙ্গলবার, ১৮ই জুন, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ, ৪ঠা আষাঢ়, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
প্রকাশিত: ২৪ মে, ২০২৩
সর্বশেষ আপডেট : ২৪ মে, ২০২৩

প্রবাসীদের কষ্ট ফুটে উঠলো পলাশ-জীবন-শিমুলদের মাঝে

দেশ, পরিবার, স্বজন ছেড়ে জীবিকার টানে ভিনদেশে পড়ে থাকেন প্রবাসীরা। তাদের একাকিত্ব, কষ্ট আর অসামান্য পরিশ্রমের গল্পগুলো থেকে যায় আড়ালেই। সেই আড়াল থেকে খুঁজে তিন প্রবাসীর কষ্টের খণ্ডচিত্র একটি শর্ট ফিল্মে ফুটিয়ে তুললেন নির্মাতা শাফায়েত হোসেন শাওন।

এর নাম ‘প্রবাসী ২’। নাম থেকেই বোঝা যাচ্ছে, আগেও এর একটি পর্ব নির্মিত হয়েছিল। দর্শকের বিপুল সাড়া পেয়েছিল শর্ট ফিল্মটি। সেই ধারাবাহিকতায় নতুন গল্প তুলে আনলেন নির্মাতা। সম্প্রতি সেটি মুক্তি পেয়েছে অন্তর্জালে।

৩ মিনিট ৫০ সেকেন্ডের এই শর্টফিল্মে তিন জন প্রবাসীর ভূমিকায় অভিনয় করেছেন জিয়াউল হক পলাশ, শরাফ আহমেদ জীবন ও শিমুল শর্মা। প্রবাসীদের জীবনের তিনটি বিশেষ ও আবেগঘন মুহূর্ত সাবলীল অভিনয়ে উপস্থাপন করেছেন তারা। যা দেখে ভিজছে প্রবাসীদের চোখ, একই সঙ্গে নাড়া দিচ্ছে দেশে থাকা দর্শকদের মনেও। এর ফলে বিভিন্ন পেজ মিলিয়ে শর্টফিল্মটির ভিউ ছাড়িয়েছে কোটির মাইলফলক।

স্বল্পদৈর্ঘ্য এ ফিল্মটি নিয়ে অভিনেতা জিয়াউল হক পলাশ বলেন, ‘প্রবাসী ভাই-বোনদের প্রতি আমার আবেগের জায়গাটা সবসময়ই আলাদা। বিভিন্ন দেশে ঘুরে বেড়ানোর সুবাদে তাদের কাছ থেকে দেখার সৌভাগ্য হয়েছে। কতটা কষ্টে তারা জীবন কাটান, সেটা কাছ থেকে না দেখলে বোঝা যাবে না। এই কাজটি করার সময় বুঝে উঠতে পারিনি এত বেশি দর্শকপ্রিয় হবে। এটা আসলে প্রবাসীদের ভালোবাসা।’

‘প্রবাসী ২’ প্রযোজনা করেছে স্টার লাইন ফুড প্রোডাক্টস লিমিটেড। প্রতিষ্ঠানটির পরিচালক মাঈন উদ্দিন বলেন, ‘প্রবাসীদের কষ্টার্জিত আয়ে পুরো দেশ সমৃদ্ধ হয়ে উঠছে। আমরা বরাবরই মানুষের শ্রমের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। সেই শ্রদ্ধা থেকেই প্রবাসীদের জীবনের বাস্তবতা নিয়ে দুটি শর্ট ফিল্ম বানানো হয়েছে।’

আরও পড়ুন