• ঢাকা
  • মঙ্গলবার, ১৮ই জুন, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ, ৪ঠা আষাঢ়, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
প্রকাশিত: ৩১ জুলাই, ২০২৩
সর্বশেষ আপডেট : ৩১ জুলাই, ২০২৩

হামলা-মামলায় আর কাজ হবে না : ফখরুল

চলমান আন্দোলন নিয়ে বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বলেছেন, অতীতের মতো হামলা-মামলা দিয়ে আন্দোলন আর দমন করা যাবে না। আওয়ামী লীগ গুগলি বুঝতে পারেনি, কোনো দিক দিয়ে বল যাচ্ছে। আমরা বহুদূর এগিয়ে গেছি। বিজয় আমাদের সুনিশ্চিত।

শনিবার (২৯ জুলাই) রাজধানীর প্রবেশমুখে অবস্থান কর্মসূচির সময় পুলিশি হামলা, মামলা ও গ্রেপ্তারের প্রতিবাদে সোমবার (৩১ জুলাই) সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে বিএনপির জনসমাবেশে তিনি এসব কথা বলেন।

বিএনপির গুগলিতে ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগ বোল্ড আউট হয়ে গেছে বলে মন্তব্য করে মির্জা ফখরুল বলেন, গুগলিতে ব্যাটসম্যান যেমন কিছু বুঝে ওঠার আগে বোল্ড আউট হয়ে যায়, বিএনপির দুই দিনের কর্মসূচিতে (২৮ ও ২৯ জুলাই) আওয়ামী লীগের অবস্থা একই হয়েছে। বিএনপির গুগলিতে আওয়ামী লীগ বোল্ড আউট হয়েছে।

তিনি বলেন, কয়েকটা লোককে আমেরিকা থেকে ভাড়া করে এনেছে। আমাদের আন্দোলন থামাতে পেরেছে? পারেনি। তারা আবার ইলেকশন কমিশনে গিয়ে মন্ত্যব্য করে। আবার তারা বলে- নির্বাচন কমিশনের অধীনে নির্বাচন সম্ভব। আরে ভাই, তুমি কে? তোমাকে চিনে কারা? এই সরকারের পায়ের মাটি কত দুর্বল হলে এই ধরনের নাটক মঞ্চস্থ করা যেতে পারে, কল্পনা করুন। আমরা শেখ হাসিনার অধীনে কোন নির্বাচন চাই না। বিরোধী সব দল মিলে একটা ঐক্য তৈরি হয়েছে। এই সরকারের অধীনে কোনো নির্বাচন নয়।

ফখরুল বলেন, গয়েশ্বর আর আমানুল্লাহর সঙ্গে যে নাটক হয়েছে সেই নাটকে উনারা ছোট হননি, ছোট হয়েছো তোমরা (সরকার)। এই সরকারের পায়ের মাটি সরে গেছে। আমাদের নেতাকর্মীদের বাড়িতে বাড়িতে হামলা-তল্লাশি করা হয়েছে। এটা করেও আমাদের এ ১৫ বছর আটকানো যায়নি। এগুলোর করে মানুষের ঢল থামানো যাবে না।

বিএনপি মহাসচিব বলেন, বারবার ঘুঘু তুমি খেয়ে যাও ধান। এবার আর ধান খাওয়া হবে না। বাংলার মানুষ বুঝে গিয়েছে। এবার আর সম্ভব হবে না। এক দফা দাবিতে দেশের সব মানুষ একসঙ্গে জেগে উঠেছে। আমরা শান্তিপূর্ণ কর্মসূচিতে বিশ্বাস করি। আমাদের বাধা দিবেন না। এই শান্তির মাধ্যমে আমরা বিজয়যাত্রা আনব। আমরা আমাদের শরীক দলের সঙ্গে আলোচনা করে আন্দোলনের পরবর্তী কর্মসূচি ঘোষণা করব।

তিনি আরও বলেন, যদি দেশে শান্তিপূর্ণ নির্বাচন করতেন, তাহলে যাদের গ্রেপ্তার করেছেন তাদের এবং বেগম খালেদা জিয়াসহ সকল রাজবন্দির অবিলম্বে মুক্তি দিন। এভাবে অত্যাচার বন্ধ না করলে জনগণ সেটা প্রতিহত করবে। সোজা পথে না আসলে ফয়সালা রাজপথে হবে।

সমাবেশে বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য মির্জা আব্বাস বলেন, আমাদের নেতাকর্মীরা কাপুরুষ নন। গ্রেপ্তার করেন, লাভ হবে না। আওয়ামী লীগের বিরুদ্ধে আন্দোলন বন্ধ হবে না। এই সরকারও টিকে থাকতে পারবে না, হাসিনার গদি চুরমার হয়ে ভেঙে পড়বে।

সমাবেশে বিএনপির স্থায়ী কমটির সদস্য আবদুল মঈন খান, নজরুল ইসলাম খান, আমির খসরু মাহমুদ চৌধুরী, ভাইস চেয়ারম্যান বরকত উল্লাহ বুলু, এ জেড এম জাহিদ হোসেন, ঢাকা মহানগর উত্তর বিএনপির আহ্বায়ক আমান উল্লাহ আমানসহ আরও অনেকে বক্তব্য রাখেন। ঢাকা মহানগর দক্ষিণ বিএনপির আহ্বায়ক আব্দুস সালাম সমাবেশে সভাপতিত্ব করেন।

আরও পড়ুন