• ঢাকা
  • বুধবার, ২২শে মে, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ, ৮ই জ্যৈষ্ঠ, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
প্রকাশিত: ২ সেপ্টেম্বর, ২০২৩
সর্বশেষ আপডেট : ২ সেপ্টেম্বর, ২০২৩

এক্স-রেতে নারীর পেটে মিলল ১৯০০পিস ইয়াবা

উপজেলা প্রতিনিধি, সদর : এক নারীর পেট থেকে ১ হাজার ৯০০পিস ইয়াবা বড়ি উদ্ধার করা হয়েছে। এ ঘটনায় মা-ছেলেসহ তিনি আসামিকে গ্রেফতার করা হয়েছে।
গ্রেফতারকৃতরা হলেন, কক্সবাজারের রামু উপজেলার খুনিয়া পালুং পশ্চিম পাড়া গ্রামের রহিম উল্যার স্ত্রী সাবেকুন নাহার (৫১) তার ছেলে সৈয়দ হোসেন (২১) এবং কুমিল্লা আদর্শ সদর উপজেলার আশোকতলা এলাকার মো. রকি (২১)।
শুক্রবার (১ সেপ্টেম্বর) রাতে বিষয়টি নিশ্চিত করেন জেলা মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ অধিদপ্তরের সহকারী পরিচালক মো. আবদুল হামিদ।  এর আগে, একই দিন  বিকেলে জেলা শহর মাইজদীর মা ও শিশু হাসপাতালে এক্স-রে করে পেট থেকে ইয়াবা গুলো জব্দ করা হয়।
খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, কক্সবাজার থেকে এক নারী তার ছেলে ইয়াবার চালান নিয়ে কুমিল্লা হয়ে নোয়াখালী আসবেন। এমন তথ্যের ভিত্তিতে গতকাল বৃহস্পতিবার দিবাগত রাত দুইটার দিকে ফেনীর লালপোল এলাকায় তল্লাশি চৌকি বসিয়ে একটি বাস থেকে সাবেকুন নাহার ও তার ছেলে সৈয়দ হোসেনকে আটক করা হয়। পরে তাদের ভাষ্যমতে, কুমিল্লার পদুয়ার বাজার এলাকা থেকে আরেক মাদক কারবারি রকিকে আটক করা হয়।
ব্যাপক জিজ্ঞাসাবাদের এক পর্যায়ে মাদক কারবারি সাবেকুন নাহার স্বীকার করে তার পেটে ১ হাজার ৯০০টি ইয়াবা রয়েছে। পরে আটক তিনজনকে ঘটনাস্থল থেকে নোয়াখালী আনা হয়। এরপর শহরের একটি বেসরকারি হাসপাতালে এক্স-রে করে পেটে ইয়াবা রয়েছে বলে নিশ্চিত হওয়া যায়। একপর্যায়ে ওষুধ সেবন করিয়ে নারীর পেট থেকে ইয়াবার ৩৮টি প্যাকেট বের করা হয়। প্রতিটি প্যাকেটে ৫০টি ইয়াবা ছিল।   সর্বমোট ১ হাজার ৯০০ ইয়াবা উদ্ধার করা হয়।
জেলা মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ অধিদপ্তরের সহকারী পরিচালক আরও জানান, আটককৃতদের বিরুদ্ধে সুধারাম থানায় এ ঘটনায় মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ আইনে মামলা রয়েছে। শুক্রবার বিকেলে ওই মামলায় তাদের গ্রেফতার দেখিয়ে বিচারিক আদালতের মাধ্যমে কারাগারে প্রেরণ করা হয়।

আরও পড়ুন

  • নোয়াখালী সদর এর আরও খবর