• ঢাকা
  • রবিবার, ১৯শে মে, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ, ৫ই জ্যৈষ্ঠ, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
প্রকাশিত: ২৪ নভেম্বর, ২০২৩
সর্বশেষ আপডেট : ২৪ নভেম্বর, ২০২৩

শ্বশুর বাড়ি থেকে গৃহবধূর মরদেহ উদ্ধার, পরিবারের দাবি হত্যা, আটক ৩

মোহাম্মদ আমান উল্যা, উপজেলা প্রতিনিধি, চাটখিল : চাটখিলে ফাতেমা মরিয়ম অর্পিতা (১৮) নামে এক গৃহবধুর মৃতদেহ উদ্ধার করেছে পুলিশ। গতকাল বৃহস্পতিবার সকালে উপজেলার নোয়াখোলা ইউনিয়নের সিংবাহুড়া গ্রামের হাজ্বী বাড়ির ইতালি প্রবাসী রবিউল ইসলাম রুবেলের বসতঘরের শৌচাগার থেকে এ মরদেহ উদ্ধার করা হয়। নিহত অর্পিতা চাটখিল পৌরসভার শাহনেয়ামতপুর এলাকার বেলাল হোসেনের কন্যা এবং সিংবাহুড়া গ্রামের ইতালি প্রবাসী রবিউল ইসলাম রুবেলের স্ত্রী।

অর্পিতার ভগ্নিপতি, হাছান অর্পিতাকে তার শাশুড়িসহ পরিবারের লোকজন হত্যা করেছে বলে অভিযোগ করেছেন। নিহতের শরীরে বিভিন্ন স্থানে নির্যাতনের চিহ্ন দেখতে পেয়েছেন বলেও তিনি জানান। তবে অর্পিতার শ্বশুরের পরিবার অর্পিতা রাত ৩ টার দিকে বাথরুমে গলায় ওড়না পেছিয়ে আত্মহত্যা করেছে বলে দাবি করছে।

জানা যায়, ২০২৩ সালের ফেব্রুয়ারিতে পরিবারের সম্মতিতে অর্পিতার সাথে রুবেলের গোপনে বিয়ে হয়। গোপনে বিয়ে হওয়ার কারণ হিসেবে জানা যায়, দু পরিবার তাদের আনুষ্ঠানিক বিয়ে দওেয়ার সময় র্অপতিার বয়িরে বয়স কম থাকার অভিযোগের ভিত্তিতে চাটখিল উপজেলা প্রশাসন বাল্য বিব্যহরে অপরাধে বিয়েটি ভেঙে দেয় এবং উভয়রে পরিবারকে ৫০ হাজার করে ১লক্ষ টাকা জরিমানা করে। পরে তারা প্রশাসনের দৃষ্টি এড়েিয় গোপনে বিয়রে আয়োজন সর্ম্পূন কর। বেয়িরে পর থেকেই শাশুড়রি নানা নির্যাতনের শিকার হয়ে আসছিল গৃহবধূ অর্পিতা।

এ ঘটনায় জিজ্ঞাসাবাদের জন্য অর্পিতার শাশুড়ি রহিমা বেগম (৫০), ননদ ফারহানা আক্তার (২৮), ননদের জামাই মজিবুর রহমান(৪০) কে জিজ্ঞেসাবাদের জন্য আটক করা হয়েছে। অর্পিতার ভগ্নিপতি হাছান এ ঘটনায় বাদী হয়ে আটককৃত এ তিন জনের বিরোদ্ধে চাটখিল থানায় অভিযোগ করেন।

চাটখিল থানার অফিসার ইনচার্জ এমদাদুল হক জানান, খবর পেয়ে তিনি ঘটনাস্থলে যান। গৃহবধুর লাস উদ্ধার করে থানায় নিয়ে আসেন এবং লাশ ময়না তদন্তরে জন্য নোয়াখালী জেনারেল হাসপাতালরে মর্গে প্রেরণ করা হয়েছে। তিনি আরও জানান আটককৃতদের জিজ্ঞাসাবাদ করা হচ্ছে।

আরও পড়ুন