• ঢাকা
  • মঙ্গলবার, ১৮ই জুন, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ, ৪ঠা আষাঢ়, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
প্রকাশিত: ১১ ডিসেম্বর, ২০২৩
সর্বশেষ আপডেট : ১১ ডিসেম্বর, ২০২৩

গাজায় ছেলের পর ইসরায়েলি মন্ত্রীর ভাগনে নিহত

ফিলিস্তিনি সশস্ত্র গোষ্ঠী হামাসের হামলায়— ইসরায়েলের যুদ্ধকালীন মন্ত্রীসভার দপ্তরবিহীন মন্ত্রী গাদি ইজানকোতের ভাগনে নিহত হয়েছেন। গত শুক্রবার (৮ ডিসেম্বর) গাজার খান ইউনিসে একটি মসজিদের ভেতর হামলা চালাতে যান গাদি ইজেনকোতের ভাগনে মাওর কোহেন (১৯)। ওই সময় হামাসের প্রতিরোধের মুখে পড়ে নিহত হন তিনি।

গত ৭ ডিসেম্বর জাবালিয়া শরণার্থী ক্যাম্পের কাছে বোমা বিস্ফোরিত হয়ে নিহত হন গাদি ইজেনকোতের ছেলে গাদ ইজেনকোত। এর একদিন পর ভাগনেকেও হারালেন তিনি।

ইসরায়েলি সংবাদমাধ্যম টাইমস অব ইসরায়েল জানিয়েছে, শুক্রবার প্রাণ হারানো মাওর কোহেন দপ্তরবিহীন মন্ত্রী গাদি ইজেনকোতের সৎ বোনের ছেলে ছিলেন। মন্ত্রীর মায়ের দুটি বিয়ে হয়েছিল।

ইসরায়েলি প্রতিরক্ষা বাহিনী (আইডিএফ) জানিয়েছে, শুক্রবার খান ইউনিসের মসজিদে অভিযান চালাতে যান মাওর কোহেনসহ কয়েকজন সেনা। ওই সময় তাদের কাছে বিস্ফোরণ ঘটায় হামাস।

তারা দাবি করেছে, মসজিদের ছাদে অবস্থান নিয়েছিলেন হামাসের একজন যোদ্ধা। তখন তাকে লক্ষ্য করে হেলিকপ্টার থেকে হামলা চালানো হয়। ওই সময় মসজিদের ভেতর অবস্থিত সুড়ঙ্গ থেকে হামাসের আরও সদস্যরা বের হয়ে আসেন। তখন মসজিদের ওপর বিমান হামলা চালিয়ে সেটি ধ্বংস করে দেওয়া হয়।

মন্ত্রীর ভাগনের সঙ্গে সেদিন খান ইউনিসে প্রাণ হারান জোনাথান ডিন জুনিয়র হাইম নামের অপর এক সেনা।

গতকাল ইসরায়েলি সংবাদমাধ্যম ডেইলি ইয়েদিয়োত আহরোনাত জানায়, যুদ্ধে এখন পর্যন্ত ৫ হাজার সেনা আহত হয়েছেন। যাদের মধ্যে ৩ হাজার সেনা গুরুতর জখম হয়ে হাত-পা হারিয়েছেন।

আরও পড়ুন