• ঢাকা
  • মঙ্গলবার, ২১শে মে, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ, ৭ই জ্যৈষ্ঠ, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
প্রকাশিত: ২৬ ডিসেম্বর, ২০২৩
সর্বশেষ আপডেট : ২৬ ডিসেম্বর, ২০২৩

তিন আফগান ক্রিকেটারকে বোর্ডের নিষেধাজ্ঞা

বিদেশি ফ্র্যাঞ্চাইজি ক্রিকেট লিগ খেলতে বাধা তিন আফগান ক্রিকেটার মুজিব উর রহমান, ফজলহক ফারুকি ও নাভিন উল হকের। এ নিয়ে নিষেধাজ্ঞা জারি করেছে আফগানিস্তান ক্রিকেট বোর্ড (এসিবি)।

এই তিন ক্রিকেটারকে নিষেধাজ্ঞা দেওয়ার ব্যপারে সোমবার এসিবি এক বিবৃতিতে জানায়, ‘আফগানিস্তানের হয়ে খেলার চেয়ে তাঁরা ব্যক্তিগত স্বার্থকে গুরুত্ব দিয়েছেন।’

এই তিন ক্রিকেটারের সঙ্গে ২০২৪ সালের কেন্দ্রীয় চুক্তি করার অপেক্ষায় আছে এসিবি। এছাড়া জানিয়ে দিয়েছে আগামী দুই বছর (২০২৪ ও ২০২৫) দেশের বাইরে ফ্র্যাঞ্চাইজি লিগ খেলতে অনাপত্তিপত্র (এনওসি) দেওয়া হবে না জন্য এই তিন ক্রিকেটারকে। এমন কী আসন্ন লিগে খেলার ব্যপারে তিন ক্রিকেটারকে দেওয়া অনাপত্তিপত্রও বাতিল করা হয়েছে।

বিবৃতিতে এসিবি জানিয়েছে, উল্লেখিত তিন ক্রিকেটার ২০২৪ সালের কেন্দ্রীয় চুক্তির বাইরে থাকার কথা জানায়। এছাড়া সবগুলো ফ্র্যাঞ্চাইজি টুর্নামেন্ট খেলার অনুমতিপত্র চেয়েছে।

এসিবির বিবৃতিতে বলা হয়, ‘আফগানিস্তানের হয়ে খেলা, যেটিকে জাতীয় দায়িত্ব হিসেবে মনে করা হয়, সেটির চেয়ে তারা ব্যক্তিগত স্বার্থকেই অগ্রাধিকার দিয়েছেন বেশি এবং এসব খেলোয়াড়ের কেন্দ্রীয় চুক্তিতে রাজি না হওয়ার কারণ হলো বাণিজ্যিক লিগগুলো। তারা সরে যেতে চাওয়ায় আফগানিস্তান ক্রিকেট বোর্ড এসব খেলোয়াড়ের বিরুদ্ধে শাস্তিমূলক ব্যবস্থার সিদ্ধান্ত নিয়েছে।’

এসিবি হুট করেই এমন সিদ্ধান্ত জানায়নি। বোর্ড এ নিয়ে তদন্ত কমিটি নিয়োগ করে। তাদের রিপোর্টের উপর ভিত্তি করেই এই সিদ্ধান্ত।

বোর্ডের বিবৃতিতে আরও বলা হয়, ‘জাতীয় দায়িত্বকে গুরুত্ব দিয়ে, মূল্যবোধ এবং আদর্শকে সমুন্নত রেখে এই সিদ্ধান্ত নিল আফগানিস্তান ক্রিকেট বোর্ড। ব্যক্তিগত স্বার্থের চেয়ে দেশের স্বার্থকে বড় করে দেখার যে মূল্যবোধ ও আদর্শ আফগানিস্তান ক্রিকেট বোর্ডের, সে বিষয়ে সব খেলোয়াড়ের গুরুত্ব দেওয়ার ব্যাপারে আলোকপাত করল এই সিদ্ধান্ত।’

আসন্ন আইপিএলের নিলামে স্পিনার মুজিবকে ২ লাখ ৪১ হাজার ডলারে কিনেছে কলকাতা নাইট রাইডার্স। মুজিব বর্তমানে খেলছেন অস্ট্রেলিয়ার বিগব্যাশে মেলবোর্ন রেনেগেডসের হয়ে। নাভিন উল হককে নিয়েছে লক্ষ্ণৌ সুপারজায়ান্টস এবং ফজলহক ফারুকিকে ধরে রেখেছে সানরাইজার্স হায়দরাবাদ।

আরও পড়ুন