• ঢাকা
  • বুধবার, ১৯শে জুন, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ, ৫ই আষাঢ়, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
প্রকাশিত: ২ জানুয়ারি, ২০২৪
সর্বশেষ আপডেট : ২ জানুয়ারি, ২০২৪

খলিফার হাটে নৌকার প্রচারণায় অংশ নেওয়ায় কর্মীর ওপর আতর্কিত হামলা

উপজেলা প্রতিনিধি, সদর : দ্বাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে নোয়াখালী- ৪ (সদর সুবর্ণচর) আসনে বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের মনোনীত প্রার্থী ও জেলা আওয়ামী লীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক একরামুল করিম চৌধুরীর নৌকা প্রতীকের নির্বাচনী প্রচারণায় অংশ নেওয়ায় আলি আকবর নামের এক আওয়ামী লীগ কর্মীর ওপর আতর্কিত সন্ত্রাসী হামলা চালিয়ে মারধর করেছে প্রতিপক্ষ ট্রাক মার্কার সমর্থকরা।

শুক্রবার (২৯ ডিসেম্বর) সদর উপজেলার খলিফার হাট এলাকায় স্থানীয় সাংসদ এমপি একরামুল করিম চৌধুরীর নৌকা প্রতীকের গনসংযোগ ও রাস্তায় পোস্টার ঝুলানো শেষে রাতে বাড়ি ফেরার পথে শিবপুর মাজারের সামনে পৌঁছামাত্র স্বতন্ত্র প্রার্থী এড. শিহাব উদ্দিন শাহীনের কর্মীসমর্থক স্থানীয় সোহাগ মেম্বারের প্রত্যক্ষ মদদে দেশীয় অস্ত্রসস্ত্র নিয়ে আতর্কিত হামলা মারধর চালিয়েছে।

হামলার শিকার আওয়ামী লীগ কর্মী আলী আকবর স্থানীয় করিম আলী দরবেশ (রহঃ) বাড়ির মৃত নুর নবী চৌধুরীর পুত্র বলে জানা যায়। তিনি এখন সদর হসপিটালে মুমূর্ষু অবস্থায় চিকিৎসাধীন অবস্থায় রয়েছে।

ভুক্তভোগী অভিযোগ করেন, হামলার ঘটনায় স্বতন্ত্র প্রার্থী এড. শিহাব উদ্দিন শাহীনের অনুসারী মিজানুর রহমান শিপন ও হারুনর রশীদ সোহাগ মেম্বারের ইন্ধন রয়েছে। হামলার ঘটনায় অভিযুক্তরা সবাই তাদের বাহিনীর লোকজন।

সদর উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান একেএম শামসুদ্দিন জেহান সাংবাদিকদের বলেন, সাধারণ মানুষ শেখ হাসিনার নৌকা প্রতীকের দিকে ঝুকে পড়েছে।

নৌকা প্রতীকের প্রার্থী একরাম চৌধুরীর পক্ষে মানুষের গণজোয়ার সৃষ্টি হয়েছে, এই গণজোয়ার থামাতে প্রতিদ্বন্দ্বী প্রার্থী শাহীনের সন্ত্রাসীরা জনগণের ওপর হামলে পড়েছে। এ ব্যাপারে আমি আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর দৃষ্টি আকর্ষণ করছি, তারা যাতে অভিযোগ পাওয়ার সঙ্গে সঙ্গে এসব সন্ত্রাসীদের গ্রেপ্তার করে। দ্রুত তাদের আইনের আওতায় আনা না গেলে তারা দ্বাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনকে প্রশ্নবিদ্ধ করবে।

এ বিষয়ে সুধারাম মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) বলেন, দাদপুরে নৌকা প্রতীকের সমর্থকের উপর আতর্কিত হামলার অভিযোগ পেয়েছি। অবশ্যই ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

আরও পড়ুন