• ঢাকা
  • শুক্রবার, ২৪শে মে, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ, ১০ই জ্যৈষ্ঠ, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
প্রকাশিত: ২ জানুয়ারি, ২০২৪
সর্বশেষ আপডেট : ২ জানুয়ারি, ২০২৪

নোয়াখালীতে বই উৎসব, চাহিদা পরিমাণ পৌঁছেনি নতুন বই

নিউজ ডেস্ক : সারাদেশের ন্যায় ২০২৩ শিক্ষাবর্ষে নোয়াখালীতে আনন্দঘন পরিবেশের মধ্যদিয়ে বই উৎসব অনুষ্ঠিত হয়েছে। জেলার ১২৫৩টি প্রাথমিক ও ৩১৩টি মাধ্যমিক এবং ২৭৫টি মাদ্রাসা শিক্ষার্থীদের হাতে নতুন বই তুলে দেওয়া হয়েছে। তবে চাহিদা পরিমাণ বই এখনই না পাওয়া গেলে ২-৩ দিনের মধ্যে সকল বিষয়ের বই শিক্ষার্থীদের হাতে তুলে দিতে পারবেন বলে আশা করছেন কর্তৃপক্ষ।

রবিবার সকালে জেলা শহর পৌর মডেল সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে বই উৎসবের উদ্বোধন করেন, জেলা প্রশাসক দেওয়ান মাহবুবুর রহমান।
এসময় উপস্থিত ছিলেন, জেলা প্রাথমিক শিক্ষা কর্মকর্তা ফেরদৌসী বেগম।
দুপুরে চাটখিলের কড়িহাটি উচ্চ বিদ্যালয়ে বই বিতরণ কার্যক্রমের উদ্বোধন করেন, প্রধানমন্ত্রীর ব্যক্তিগত সহকারী মোহাম্মদ জাহাঙ্গীর আলম।

এসময় উপস্থিত ছিলেন, চাটখিল উপজেলার সহকারী শিক্ষা কর্মকর্তা মোহাম্মদ আলী, কড়িহাটি উচ্চ বিদ্যালয়ের ম্যানেজিং কমিটির সভাপতি মাসুদুর রহমান শিপন, উপজেলা আওয়ামী লীগের সিনিয়র যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক মোহাম্মদ উল্যাহ পাটোয়ারী, বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মনির হোসেন।

মাইজদী বালিকা বিদ্যা নিকেতন এ বই উৎসবের উদ্বোধন করেন, জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান ও শহর আওয়ামী লীগের সভাপতি আবদুল ওয়াদুদ পিন্টু।
জেলা প্রাথমিক শিক্ষা কর্মকর্তা ফেরদৌসী বেগম জানান, জেলার ১২৫৩টি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে নতুন বইয়ের চাহিদা ছিল ১৭ লাখ ১২ হাজার ৫৫৭ পিস, যার বিপরীতে ৩১ ডিসেম্বর পর্যন্ত আমরা ৩ লাখ নতুন বই হাতে পেয়েছি, যার মধ্যে প্রাক-প্রাথমিক, প্রথম ও দ্বিতীয় শ্রেণির বই রয়েছে। প্রাথমিকভাবে প্রাপ্ত বইগুলো ‘বই উৎসব’ এর মাধ্যমে কোমলমতি শিক্ষার্থীদের হাতে তুলে দেওয়া হয়েছে। আগামী কয়েকদিনের মধ্যে আমাদের চাহিদা মোতাবেক সকল বই হাতে আসবে এবং শিক্ষার্থীদের মাঝে বিতরণ করা হবে বলে আশা করেন তিনি।

জেলা মাধ্যমিক শিক্ষা কর্মকর্তা নূর উদ্দিন মো. জাহাঙ্গীর বলেন, ২০২৩ শিক্ষাবর্ষে জেলার ৩১৩টি মাধ্যমিক বিদ্যালয় ও ২৭৫টি মাদ্রাসায় আমাদের নতুন বইয়ের চাহিদা ছিল ৫৪ লাখ ১৭ হাজার ৭৪৭ পিস। যার বিপরীতে আমরা নতুন বই সরবরাহ পেয়েছি ৩২ লাখ ৬৭ হাজার ২৮৫ পিস। বই উৎসবের মাধ্যমে প্রাপ্ত বইগুলো উপজেলা থেকে বিদ্যালয়ভিত্তিক শিক্ষার্থীদের হাতে তুলে দেওয়া হয়েছে। পর্যায়ক্রমে বাকিগুলো আসার পর শিক্ষার্থীদের হাতে তুলে দেওয়া হবে।

আরও পড়ুন

  • বিশেষ প্রতিবেদন এর আরও খবর