• ঢাকা
  • সোমবার, ২৭শে মে, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ, ১৩ই জ্যৈষ্ঠ, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
প্রকাশিত: ৪ জানুয়ারি, ২০২৪
সর্বশেষ আপডেট : ৪ জানুয়ারি, ২০২৪

নোয়াখালী-৪ (সদর-সূবর্ণচর) আসনের স্বতন্ত্র প্রার্থীর গণসংযোগ ও আলোচনা সভা

উপজেলা প্রতিনিধি, সদর : দ্বাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচন উপলক্ষে নোয়াখালী-৪ (সদর সূবর্ণচর) আসনের স্বতন্ত্র প্রার্থী এডভোকেট শিহাব উদ্দিন শাহীন তাঁর সৌজন্যে সাক্ষাৎ ও গণসংযোগ ও আলোচনা সভার আয়োজন করা হয়। জেলা জজ আদালত ভবনের আইনজীবী সমিতির ২নং হলরুমে ৩ জানুয়ারী ২৪ এই আয়োজন করা হয়।

অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন বার এসোসিয়েশনের সাবেক সভাপতি এডভোকেট মোল্লা হাবিবুর রাসূল মামুন, সিনিয়র আইনজীবী, সাবেক জিপি এডভোকেট কাজী মানসুরুল হক খসরু, এডভোকেট এ.টি.এম মহিবউল্যা (সাবেক পিপি), সদর উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি এডভোকেট আতাউর রহমান নাছের, জেলা কৃষক লীগের সাধারণ সম্পাদক এডভোকেট আলমাস খান, গোলাম মহিউদ্দিন লাতু, জেলা সেচ্ছাসেবক লীগের সভাপতি ফাহাদ ইউসুফ প্রমিথ। সভায় সভাপতিত্ব করেন এডভোকেট এ.বি.এম জাকারিয়া।

সভায় কাজী মানসুরুল হক খসরু বলেন, সদর-সূবর্ণচর আসনে আবদুল মালেক উকিল সাহেবের পর বহুকাল কোন আইনজীবীকে সংসদ নির্বাচনে ভোট দিতে পারি নাই। এবার সুযোগ এসেছে, আমরা আমাদের একজনকে পেয়েছি, তিনি আমাদের শিহাব উদ্দিন শাহীন। আগামী ৭ জানুয়ারী আমরা ট্রাক মার্কায় ভোট দিয়ে শাহীন ভাইকে জয়যুক্ত করে আমাদের সেবা করার সুযোগ দিন। গোলাম মহিউদ্দিন লাতু বলেন, আমার বাবা আবদুল মালেক উকিল নোয়াখালীর জন্য এবং এই আদালত চত্বরেও তাঁর উন্নয়নের ছোঁয়া পেয়েছে। তাই আমার দাবি আমার ছোট ভাই এডভোকেট শিহাব উদ্দিন শাহীনকে ট্রাক মার্কায় ভোট দিয়ে আপনাদের সেবা করার সুযোগ দিন।

সাবেক আইনজীবী সমিতির সভাপতি ও পিপি এডভোকেট মোল্লা হাবিবুর রাসূল মামুন বলেন, এডভোকেট শিহাব উদ্দিন শাহীন যখন নোয়াখালী সদর উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান ছিলেন, তখন আমরা যেই কোন কাজে বা প্রয়োজনে ওনার কাছে গিয়েছি, ততবার ওনি ওনার অন্য সকল কাজ বাদ দিয়ে আমাদের সময় দিয়েছেন। আমাদের কাজ আগে করে দিয়েছেন। সুতরাং আজ আমরা তার প্রয়োজনে এগিয়ে যাওয়া দরকার।

এডভোকেট শিহাব উদ্দিন শাহীন তাঁর বক্তব্যে বলেন, দ্বাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচন সম্পর্কে আমার চাইতে আপনারা বেশি জানেন এবং বুঝেন। আমি বেশিকিছু বলবো না, আমি নোয়াখালী বার এসোসিয়েশন নোয়াখালী একজন ক্ষুদ্র সদস্য হওয়া সত্ত্বেও আমাদের বারের সভাপতি মহোদয়, আমার জন্য সময় দিয়েছেন তার জন্য আমি কৃতজ্ঞ। আমি যার বিরুদ্ধে নির্বাচন করছি, তিনি প্রতিশ্রুতির ফুলঝুড়ি ছাড়া আর কিছু দেন নাই। এই বারের যেই অবস্থা বাহিরের অবস্থা এর চেয়ে খারাপ।

তিনি বলেন এই বার এসোসিয়েশন আমার ঘর, আমি আপনাদের সন্তান, আমাকে আপনারা জানেন চিনেন। আমি নির্বাচিত হলে আমরা সকলে মিলে আমাদের ঘর ও বাহিরের অবস্থার উন্নয়ন মুলক পরিবর্তন করবো।

আমি এই সমাজের একজন, এই সমাজে একদিন আমাকে মরতে হবে, তখন আমার সাথে কিছুই যাবে না, যাবে আমার সেবা।

সর্বশেষ বক্তব্য রাখেন, নোয়াখালী বার এসোসিয়েশনের সভাপতি এডভোকেট এ.বি.এম জাকারিয়া বলেন, এই নোয়াখালী বার এসোসিয়েশন ঐতিহ্যবাহি বার, এখানে দেশ বরেণ্য অনেক মানুষ আসছেন। শিহাব উদ্দিন শাহীন এই বারেরই সদস্য, তিনি নমিনেশন নিয়ে প্রথমে এই বারে এসেছেন, তাই তার জন্য আমাদের সকলের সম্মিলিত এই আয়োজন।

আরও পড়ুন

  • নোয়াখালী সদর এর আরও খবর