• ঢাকা
  • বুধবার, ২২শে মে, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ, ৮ই জ্যৈষ্ঠ, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
প্রকাশিত: ৯ জানুয়ারি, ২০২৪
সর্বশেষ আপডেট : ৯ জানুয়ারি, ২০২৪

শতাধিক এতিম শিশুদের খাওয়ালেন পুলিশ সুপার আসাদুজ্জামান

উপজেলা প্রতিনিধি, সদর : মনের আশা পূরণ হওয়ায় সদর উপজেলায় শতাধিক এতিম মাদরাসা শিক্ষার্থীকে নিজ হাতে গোশত-ভাত খাওয়ালেন জেলা পুলিশ সুপার (এসপি) মোহাম্মদ আসাদুজ্জামান। এসময় তিনি এতিম শিশুদের থাকা, খাওয়ার ব্যবস্থাসহ আনুষাঙ্গিক বিষয়ে খোঁজ-খবর নেন এবং সব সময় তাদের পাশে থাকার প্রতিশ্রুতি দেন।

মঙ্গলবার (৯ জানুয়ারি) দুপুরে উপজেলার সুধারাম মডেল থানার দারুল ফালাহ্ ইসলামিয়া ক্বাওমী মাদ্রাসা ও এতিমখানায় এ খাবারের আয়োজন করেন তিনি।

জানা গেছে, ব্যক্তিগত বিষয়ে সফলতা অর্জনের পর ইয়াতিম শিশুদের খাওয়ানোর কথা মনস্থির করেন

জেলা পুলিশ সুপার (এসপি) মোহাম্মদ আসাদুজ্জামান। তাই মঙ্গলবার (৯ জানুয়ারি) দুপুরে সুধারাম মডেল থানার দারুল ফালাহ্ ইসলামিয়া ক্বাওমী মাদ্রাসা ও এতিমখানায় শতাধিক শিক্ষার্থী ও শিক্ষকদের গোশত ভাতের আয়োজন করেন তিনি। এসময় তিনি নিজের হাতে ইয়াতিম শিশুদের খাবার তুলে দেন।

মাদরাসার নূরানী বিভাগের ইয়াতিম শিক্ষার্থী ওবায়দুল হক (৬) বলেন, অনেকদিন পর পেটভরে গোশত দিয়ে ভাত খেলাম। সব খাবার পর্যাপ্ত ছিল। পুলিশ সুপার স্যার আমাদের নিজের হাতে খাবার পরিবেশন করেছেন। আমাদের কাছে অনেক ভালো লেগেছে।

চতুর্থ জামায়াতের আরেক শিক্ষার্থী ইকবাল (১০) হোসেন বলেন, আমরা সবাই পেটভরে খাইসি। আমাদের কাছে আজ খাবারের উৎসব হয়েছে। স্যার আমাদের খবর নিয়েছেন। আল্লাহ উনার সব চাওয়া পূরণ করুক। আমরা সবাই মিলে উনার পরিবারের জন্য দোয়া করেছি।

এবিষয়ে পুলিশ সুপার (এসপি) মোহাম্মদ আসাদুজ্জামান বলেন, প্রতিটা মানুষ তার মনের আশা পূরণ হলে মহান সৃষ্টিকর্তার কাছে শুকরিয়া আদায় করে। আমার মনের আশা পূরণ হওয়ায় আমিও ইয়াতিম শিশুদের সাথে আনন্দ ভাগাভাগি করেছি। এতিম শিশুরা আল্লাহর কুরআন পড়ছে। তাদের জন্য একবেলা খাবারের ব্যবস্থা করতে পেরে আমি আনন্দিত। সবার সাথে কথা বলেছি। আল্লাহ যেনো এদেরকে কবুল করে। আমি যেখানেই থাকি সব সময় তাদের খোঁজ খবর রাখবো।

এ সময় জেলা পুলিশের বিশেষ শাখার ওসি (ডিআইওয়ান) মো. মোস্তাফিজুর রহমানসহ মাদরাসার শিক্ষক ও স্থানীয় গণ্যমান্য ব্যক্তিবর্গ উপস্থিত ছিলেন।

আরও পড়ুন

  • নোয়াখালী সদর এর আরও খবর