• ঢাকা
  • মঙ্গলবার, ১৮ই জুন, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ, ৪ঠা আষাঢ়, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
প্রকাশিত: ২৪ জানুয়ারি, ২০২৪
সর্বশেষ আপডেট : ২৪ জানুয়ারি, ২০২৪

কেউ অবিনশ্বর নয় তবে তার কর্ম অবিনশ্বর-নোবিপ্রবি উপাচার্য

উপজেলা প্রতিনিধি, সদর : কেউ অবিনশ্বর নয় তবে তার কর্ম অবিনশ্বর বলে মন্তব্য করেছেন নোয়াখালী বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের (নোবিপ্রবি) উপাচার্য অধ্যাপক ড. মো. দিদার-উল-আলম।

মঙ্গলবার (২৩ জানুয়ারি) দুপুরে জেলা শিল্পকলা একাডেমির মিলনায়তনে নোয়াখালী জেলা পুলিশের সাফল্য ও গৌরবের স্মারক গ্রন্থ ‘পদচিহ্ন’ এর প্রকাশনা উৎসবে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এ মন্তব্য করেন।

উপাচার্য অধ্যাপক ড. মো. দিদার-উল-আলম বলেন, পুলিশ দেশের আইন শৃঙ্খলা নিয়ন্ত্রণে নিরলসভাবে কাজ করে। কাজ করতে গিয়ে পুলিশ নানা চড়াই-উতরাই পার হয়। এসব কঠিন কাজের মধ্যে দিয়েও মানুষের মনে স্থান নেওয়া কঠিন। তবে নোয়াখালী জেলা পুলিশের সাবেক পুলিশ সুপার শহীদুল ইসলাম অনেক কষ্টসাধ্য কাজ বাস্তবায়ন করেছেন। তিনি নোয়াখালী জেলা পুলিশের সাফল্য ও গৌরবের স্মারক গ্রন্থ ‘পদচিহ্ন’ বের করেছেন। নিজের কাজের বাহিরে থেকেও তিনি এই বই লিখেছেন। তিনি এখন ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশের উপ-পুলিশ কমিশনার হিসেবে দায়িত্বে আছেন। আসলে কেউ অবিনশ্বর নয় তবে তার কর্ম অবিনশ্বর।

উপাচার্য অধ্যাপক ড. মো. দিদার-উল-আলম আরও বলেন, পুলিশের ইতিহাস স্বাধীনতার যুদ্ধে বীরের ইতিহাস। সেই রাজারবাগ থেকেই সূচনা হয়ে আসছে। দেশের সকল দুর্যোগ ও দুর্বিপাকে পুলিশ সবার আগে পাশে দাঁড়ায়। যতদিন মুক্তিযুদ্ধ নিয়ে কথা হবে, ততদিন পুলিশের বীরত্বগাথা উচ্চারিত হবে। নিজেদের কর্মের স্মারক গ্রন্থ পদচিহ্ন আজীবন স্মৃতি হিসেবে থাকবে। এই প্রশংসনীয় কাজের জন্য এবং এমন একটি স্মৃতি গ্রন্থ নোয়াখালী বাসিকে উপহার দেওয়ার জন্যবজেলা পুলিশের সাবেক জেলা পুলিশ সুপার শহীদুল ইসলামকে ধন্যবাদ জানাই।

অনুষ্ঠানে বইটির রুপকার ও মুখ্য আলোচক ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশের উপ- পুলিশ কমিশনার ও সাবেক জেলা পুলিশ সুপার মো. শহীদুল ইসলাম বলেন, মানুষ দেহধারণ করে না বাঁচতে পারলেও কর্মে বাঁচে চিরকাল। আমি চেষ্টা করেছি পুলিশের সাথে সাধারণ মানুষের যে একটি সম্পর্ক রয়েছে সে সম্পর্কের যায়গায় থেকে আমাদের পেশাগত দায়িত্বের যায়গায় থেকে আমাদের কাজের অংশ হিসাবে মানুষের জন্য কিছু রেখে যাওয়ার কিছু চিহ্ন রেখে যাওয়া উচিত। সে যায়গার একটি হলো এই “পদচিহ্ন “। আমরা চেষ্টা করের এ পদচিহ্নের মাধ্যমে জেলা পুলিশের বিভিন্ন কাজের সাফল্য ও গৌরবের অংশ হিসাবে এই স্মারক গ্রন্থটি নোয়াখালী জেলার মানুষ কিছুটা হলে উপলব্ধি করতে পারবে। আমি বিশ্বাস করি কেউ এক যায়গায় থাকবে না। এক সময় সবাই তার কর্মব্যস্ততার কারনে চলে যাবে কিন্তু আমরা চাই আমাদের কাজের অংশ হিসাবে এই “পদচিহ্ন ” নোয়াখালী মানুষের মাঝে বেঁচে থাকবে তার কাজ ও কর্মে।

জেলা কমিউনিটি পুলিশিং এর সভাপতি অধ্যক্ষ প্রফেসর কাজী মুহম্মদ রফিক উল্লাহর সভাপতিত্বে ও জেলা পুলিশ সুপার মোহাম্মদ আসাদুজ্জামানের আয়োজনে অনুষ্ঠানটির সঞ্চালনা করেন অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (সদর সার্কেল) মো. মোর্তাহীন বিল্লাহ।অনুষ্ঠানে বীর মুক্তিযোদ্ধা মিয়া মোহাম্মদ শাহজাহান, নোয়াখালী প্রেসক্লাবের সভাপতি বখতিয়ার শিকদার, সাধারণ সম্পাদক আবু নাসের মঞ্জু প্রমুখ বক্তব্য রাখেন।

এ ছাড়াও অনুষ্ঠানে জেলা সিভিল সার্জন ডা. মাসুম ইফতেখার, অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (প্রশাসন ও অর্থ) বিজয়া সেন, অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (ক্রাইম ও অপস) মোহাম্মদ ইব্রাহীম, অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (সদর সার্কেল) মো. মোর্তাহীন বিল্লাহ, অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (বেগমগঞ্জ সার্কেল) মো. নাজমুল হাসান রাজিব, সহকারী পুলিশ সুপার (চাটখিল সার্কেল) নিত্যানন্দ দাস, সহকারী পুলিশ সুপার (হাতিয়া সার্কেল) আমান উল্যাহ, বিভিন্ন থানার ইনচার্জগণসহ বিভিন্ন শ্রেণী পেশার মানুষ উপস্থিত ছিলেন।

আরও পড়ুন