• ঢাকা
  • মঙ্গলবার, ১৮ই জুন, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ, ৪ঠা আষাঢ়, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
প্রকাশিত: ১৪ মার্চ, ২০২৪
সর্বশেষ আপডেট : ১৪ মার্চ, ২০২৪

প্রথম সন্তান পানিতে পড়ে মৃত্যু, এবার এক সাথে তিন সন্তান জন্ম দিলেন মারজান

উপজেলা প্রতিনিধি, সদর : সদর উপজেলায় মারজান আক্তার (২৪) নামের এক গৃহবধূ একসঙ্গে তিন সন্তানের জন্ম দিয়েছেন। নবজাতক দুই মেয়ে ও এক ছেলে। তাদের নাম রাখা হয়েছে- ইয়াশ, আয়েশা ও তানিশা।

শনিবার (৯ মার্চ) সকালে জেলা শহরের আমেরিকান স্পেশালাইজড হসপিটালে অস্ত্রোপচারের মাধ্যমে তিন শিশুর জন্ম হয়।

গৃহবধূ মারজান আক্তার নোয়াখালী ইউনিয়নের ৬ নং ওয়ার্ডের দক্ষিণ মাছুমপুর গ্রামের আবদুস সাত্তারের বাড়ির আবু বকর ছিদ্দিক পিয়াসের স্ত্রী।

প্রসূতি মা শিল্পী বেগম বলেন, আমার মেয়ের প্রথম সন্তান ওসমান গনি দেড় বছরের মাথায় পানিতে পড়ে মারা গেছে। তারপর আজ মেয়ের এক সাথে তিন সন্তানের জন্ম হয়েছে। আমরা খুব খুশী। তাদের জন্য দোয়া চাই।

সন্তানদের বাবা আবু বকর ছিদ্দিক পিয়াস বলেন, আমাদের একসাথে তিন সন্তান হবে তা আমরাও জানতাম না। আলহামদুলিল্লাহ আমি ও আমার স্ত্রী অনেক খুশী হয়েছি। তাদের ন রেখেছি ইয়াশ, আয়েশা ও তানিশা। এক সন্তান হারানোর শোকে আল্লাহ আমাদের তিন সন্তান দিয়েছেন। আমি দিনমজুর। একটা ভাতের হোটেল আছে আমাদের। সন্তানগুলোর খরচ নিয়ে কিছুটা হিমশিম খাবো। তারপরও সবার কাছে দোয়া চাই।

আমেরিকান স্পেশালাইজড হসপিটালে ব্যবস্থাপক কঙ্কন পাঠক বলেন, গতকাল রাত ৩ টার দিকে ব্যথা নিয়ে হাসপাতালে আসেন প্রসূতি মারজান আক্তার। তখনই হাসপাতালের গাইনি বিভাগের চিকিৎসক ইসমত আরা পারভিন তানিয়ার অধীনে ভর্তি করা হয়। সকালে অস্ত্রপচারের মাধ্যমে মারজান আক্তার তিন সন্তানের জন্ম দেন।
তিন নবজাতক ও মা সুস্থ আছেন বলে জানিয়েছেন চিকিৎসক ইসমত আরা পারভিন তানিয়া। তিনি বলেন, আলহামদুলিললাহ্। এত সকালে সুন্দর ত্রিপল বেবী দেখে মনটা খুশী হলো। যদিও মায়ের ওজন ১০৫ কেজি এর মধ্য উঁচ্চ রক্তচাপ ছিলো সব মিলে সুস্থ ভাবে মা বেবীদের সেভ করতে পেরেছি। নবজাতকদের ওজনও ভালো। একসঙ্গে তিনটি বাচ্চা জন্মগ্রহণ অস্বাভাবিক নয়। চিকিৎসক হিসেবে আমিও আনন্দিত।

আরও পড়ুন