• ঢাকা
  • সোমবার, ১৭ই জুন, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ, ৩রা আষাঢ়, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
প্রকাশিত: ১৮ জুলাই, ২০২৩
সর্বশেষ আপডেট : ১৮ জুলাই, ২০২৩

কৃষ্ণসাগরীয় শস্যচুক্তি ‘রাশিয়ার বেরিয়ে যাওয়ার খেসারত দেবে কোটি মানুষ’

কৃষ্ণসাগরীয় শস্যচুক্তি থেকে রাশিয়া বেরিয়ে যাওয়ায় উদ্বেগ জানিয়েছে জাতিসংঘ। ইউক্রেনের সঙ্গে সম্পাদিত শস্যচুক্তির মেয়াদ আর না বাড়ানোয় ক্ষতির মুখে পড়বে বিশ্বের কোটি কোটি ক্ষুধার্ত মানুষ। এ কথা জানিয়ে হতাশা ব্যক্ত করেছেন জাতিসংঘ মহাসচিব অ্যান্তোনিও গুতেরেস।

রাশিয়ার বেরিয়ে যাওয়ার প্রতিক্রিয়ায় জাতিসংঘ সদর দফতরে সংবাদ সম্মেলনে দুঃখ প্রকাশ করে গুতেরেস বলেছেন, বিশ্বের কোটি কোটি মানুষ ক্ষুধায় ধুঁকছে। প্রতিনিয়ত জীবনযাত্রার ব্যয় বাড়ায় হিমশিম খাচ্ছে বহু মানুষ। এখন শস্য চুক্তি নিয়ে মস্কোর সিদ্ধান্তে এসব মানুষকে চড়া মূল্য দিতে হবে।

তিনি আরও বলেছেন, মস্কোর পদক্ষেপ বিশ্বের অভাবী ও দরিদ্র লোকদের ঝুঁকিতে ফেলবে। নির্বিঘ্নে খাদ্যশস্য রফতানির জন্য শস্য চুক্তি নবায়ন করা হবে বলে আশা করছিল জাতিসংঘ।

আলোচিত চুক্তিটি ফের নবায়নের জন্য প্রেসিডেন্ট পুতিনকে চিঠি লিখেছিলেন জাতিসংঘ মহাসচিব। কিন্তু তাতে সাড়া পাওয়া যায়নি।

এর আগে ক্রেমলিনের মুখপাত্র দিমিত্রি পেসকভ জানান, দুর্ভাগ্যবশত কৃষ্ণ সাগরীয় চুক্তির রাশিয়া সংশ্লিষ্ট কিছু বিষয় এখন পর্যন্ত বাস্তবায়িত হয়নি। ফলে এই চুক্তি স্থগিত করা হয়েছে। যখন চুক্তি অনুসারে রাশিয়া সংশ্লিষ্ট বিষয়গুলো বাস্তবায়ন হবে, তখন আমরা ফিরবো।

মস্কো সরে আসায় হতাশা প্রকাশ করেছেন বিশ্বের অনেক দেশের নেতা। জাতিসংঘ ও তুরস্কের মধ্যস্থতায় রাশিয়া ও ইউক্রেন এই চুক্তি স্বাক্ষর করেছিল। খাদ্যশস্য রফতানির এই চুক্তি প্রথম স্বাক্ষর হয় ২০২২ সালের জুলাইয়ে। এতে একটি সুরক্ষিত সামুদ্রিক করিডোর গড়ে তোলা হয়। যে করিডোর দিয়ে ইউক্রেনীয় বন্দর থেকে দেশটির খাদ্যশস্য বিভিন্ন দেশে রফতানি করা হয়। যা বিশ্বের খাদ্য ঘাটতি মোকাবিলায় ভূমিকা রাখে।

সূত্র: এএফপি

আরও পড়ুন