• ঢাকা
  • সোমবার, ২৭শে মে, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ, ১৩ই জ্যৈষ্ঠ, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
প্রকাশিত: ১৪ মার্চ, ২০২৪
সর্বশেষ আপডেট : ১৪ মার্চ, ২০২৪

সেই সংখ্যালঘুর বাড়ি পরিদর্শন করলেন এমপি ইব্রাহিম

উপজেলা প্রতিনিধি, সোনাইমুড়ী : সোনাইমুড়ীতে হামলার শিকার সংখ্যালঘু সাংবাদিক অনুপ সিংহের বাড়ি পরিদর্শন করলেন নোয়াখালী-১ আসনের সংসদ সদস্য এইচ.এম.ইব্রাহিম।

শনিবার দুপুরে পরিদর্শনের সময় উপস্থিত ছিলেন সোনাইমুড়ী পৌর মেয়র নুরুল হক চৌধুরী, উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা কানিজ ফাতেমা, উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি মমিনুল ইসলাম বাকের, সাধারণ সম্পাদক আ.ফ.ম বাবুল বাবু, উপজেলা যুবলীগের আহবায়ক খলিলুর রহমান, সোনাইমুড়ী প্রেস ক্লাবের সভাপতি খোরশেদ আলম সহ হিন্দু সম্প্রদায়ের নেতৃবৃন্দ।

এসময় এমপি এইচ এম ইব্রাহিম ভুক্তভোগী পরিবার থেকে হামলার ঘটনার বিস্তারিত শোনেন ও সমস্যা সমাধানের আশ্বাস দেন।

উল্লেখ্য, একই গ্রামের আজহার আলীর ছেলে আলী আক্কাস (৫০) ও বাচ্চু মিয়া ওরফে বেচু (৫৫) ঐ পরিবারকে উচ্ছেদ করে সম্পত্তি দখলের পায়তারা করে আসছিল। এই নিয়ে ঐ পরিবারের উপর দীর্ঘদিন ধরে বিভিন্ন অত্যাচার-নির্যাতন চালিয়ে আসছে। সাংবাদিকের পরিবার তাদের অত্যাচার নির্যাতনে দিশেহারা হয়ে পড়েছেন। এর পূর্বে ঐবাড়ীর শ্মশানের জায়গা দখল, যাতায়াতের প্রতিবন্ধকতা সৃষ্টি ও হিন্দুদের পূজাস্থানের শিথলা গাছ জোর পূর্বক কেটে ফেলে। বৃহস্পতিবার সকালে অনুপ সিংহ তার পুরাতন বসতঘর মেরামত করতে শুরু করলে আলী আক্কাস ও তার সহদর বাচ্চু মিয়া ওরফে বেচুর নেতৃত্বে বহিরাগত ৮/১০জন দেশীয় অস্ত্র নিয়ে বাঁধা দেয়। সাংবাদিককে বাঁশ দিয়ে এলোপাতাড়ী পিটিয়ে মারাত্বক জখম করে ব্যবহৃত মোবাইল ফোন ছিনিয়ে নেয়। তার আত্বচিৎকারে বৃদ্ধ মা অঞ্জলী রাণী সিংহ (৫২) ও ভাতিজা শ্রাবণ চন্দ্র সিংহ(১৪) এগিয়ে এলে তাদেরকেও মারধর করে। প্রায় এক ঘন্টাব্যাপী সন্ত্রাসীরা ঐ বাড়িতে তান্ডবলীলা চালায়। দেশীয় অস্ত্র দিয়ে বাড়ীর অন্যান্য লোকজনকে ভয়ভীতি প্রদর্শন করে। সাংবাদিকের বিভিন্ন প্রজাতীর প্রায় ৫/৬টি গাছ কেটে ফেলে।

আরও পড়ুন

  • সোনাইমুড়ী এর আরও খবর