• ঢাকা
  • মঙ্গলবার, ২১শে মে, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ, ৭ই জ্যৈষ্ঠ, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
প্রকাশিত: ৬ এপ্রিল, ২০২৪
সর্বশেষ আপডেট : ৬ এপ্রিল, ২০২৪

সোনাইমুড়ীতে মানব পাচারকারীদের গ্রেপ্তারের দাবিতে মানববন্ধন

মোহাম্মদ হানিফ, উপজেলা প্রতিনিধি, সোনাইমুড়ী : সোনাইমুড়ীতে মানব পাচারকারী জুবায়ের হোসেন, আপেল মাহমুদসহ একটি চক্রের বিরুদ্ধে হয়রানি, অর্থ আত্মসাৎতের অভিযোগ এনে মানববন্ধন করেছে ভুক্তভোগীরা।

বুধবার ৩ এপ্রিল বেলা ১১টার দিকে রামগঞ্জ মাইজদী সড়কের সোনাইমুড়ী কেন্দ্রীয় মসজিদের সামনে মানববন্ধন করে।

এ সময় মানববন্ধনে গাজীপুর জেলার সদর উপজেলার কামারিয়া গ্রামের মিজানুর রহমানের পুত্র মানব পাচারকারী চক্রের প্রধান জোবায়ের হোসেন ও তার সহযোগী আপেল মাহমুদসহ চক্রটির বিচার দাবি করেন।

মানব পাচারকারী জুবায়ের হোসেন, আপেল মাহমুদসহ চক্রটির বিরুদ্ধে সোনাইমুড়ী থানায় ভুক্তভোগী কামরুল ইসলাম ও পার্শ্ববর্তী বেগমগঞ্জ উপজেলার রঘু রামপুর গ্রামের শাহাদাত হোসেন বিজ্ঞ আদালতে মামলা করেছেন

সোনাইমুড়ী উপজেলার মাহতলা গ্রামের আবু তাহেরের পুত্র কামরুল ইসলাম জানান, ২০২২ সালের ২২ মে তার এক বন্ধুর মাধ্যমে আপেল মাহমুদের সাথে পরিচয় হয়। সে তাকে মেক্সিকোতে নেয়ার প্রলোভন দেয়। পাসপোর্ট, এনআইডি কার্ড ও নগদ ৩০ লক্ষ টাকা প্রদান করেন। এরপর থেকে এ পাচারকারী চক্রটি বিভিন্ন তালবাহানা শুরু করে। সোনাইমুড়ীর মাহতলা গ্রামের জামশেদ আলম, সালাউদ্দিন, দুলাইয়া পাড়ার মনজুর রহমান, জয়াগ গ্রামের সিরাজুল ইসলাম,পার্শবর্তী বেগমগঞ্জ উপজেলার রঘুরামপুর গ্রামের শাহাদাত হোসেন, দুলিয়া পাড়ার মনজুর রহমান, পার্শ্ববর্তী কুমিল্লা জেলার মনোহরগঞ্জের ফাহাদ মোল্লাসহ ২০ যুবক এই চক্রটির খপ্পরে পড়ে। প্রায় ২ কোটি টাকা হাতে নিয়ে এই চক্রটি এখন গা ঢাকা দিয়েছে।

মাহুতলা গ্রামের ভুক্তভোগী মোঃ ফরিদ হোসেন জানান, গাজীপুরের বাসিন্দা মানব পাচারকারী চক্রের হোতা জোবায়ের হোসেন ও আপন মাহমুদ উচ্চ বেতনের প্রলোভন দেখিয়ে হোটেলের চাকরি দেয়ার আশ্বাসে ২০ যুবককের সাথে প্রতারণা করেছে। এই চক্রটি প্রথমে বাংলাদেশ বিমান বন্দর থেকে টুরিস্ট ভিসায় জেরা গুয়ে ওপরে মেক্সিকোতে নেয়ার কথা ছিল। এখন এই চক্রটি পালিয়ে রয়েছে।

আরও পড়ুন

  • সোনাইমুড়ী এর আরও খবর