• ঢাকা
  • বুধবার, ২২শে মে, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ, ৮ই জ্যৈষ্ঠ, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
প্রকাশিত: ১ মে, ২০২৪
সর্বশেষ আপডেট : ১ মে, ২০২৪

সোনাইমুড়ীতে যৌতুকের মামলায় স্বামী কারাগারে

উপজেলা প্রতিনিধি, সোনাইমুড়ী : সোনাইমুড়ীতে স্ত্রীর যৌতুক ও মারধরের মামলায় স্বামী সোহেল (৩২) কে আটক করেছে পুলিশ।

গতকাল সকালে পুলিশ অভিযান চালিয়ে পার্শ্ববর্তী লক্ষ্মীপুর জেলার চন্দ্রগঞ্জ উপজেলার মিঠারখিল গ্রাম থেকে তাকে আটক করা হয়।

জানা যায়, উপজেলার বজরা গ্রামের মর্জিনা আক্তার (২৭) এর সাথে পার্শ্ববর্তী লক্ষ্মীপুর জেলার মিঠারখিল গ্রামের শাহ আলমের ছেলে সোহেলের সাথে মোবাইলে প্রেমের সম্পর্ক গড়ে ওঠে।২০১৫ সালে এই সম্পর্কের জের ধরে পারিবারিকভাবে তাদের বিবাহ হয়। বিয়ের সময় কাবিন হয় ৭ লাখ টাকা।২০১৭ সালে স্বামী সৌদিতে যেতে ২ লাখ ৫০ হাজার টাকার নেয় মর্জিনার পরিবার থেকে। দীর্ঘ ৭ বছর বিদেশ থেকে দেশে এসে যৌতুক লোভী স্বামীকে আরো দুই লাখ টাকা দিতে চাপ প্রয়োগ করে। মর্জিনার পরিবার অতি দরিদ্র হওয়ায় টাকা দিতে অপরাগাতা প্রকাশ করলে তার উপর নেমে আসে অমানবিক নির্যাতন।

গত ২৫ মার্চ রাতে এ নিয়ে স্বামী রাগান্বিত হয়ে তার পরিবারের অন্যান্য সদস্য ও স্থানীয় মহিলা ইউপি সদস্যসহ মর্জিনাকে মারধর করে।পরে ওই গৃহবধূকে তার স্বামীর বাড়ি থেকে তাড়িয়ে দেওয়া হয়। সে নিরুপায় হয়ে স্বামী ও পরিবারের অন্যান্য সদস্যকে বিবাদী করে নোয়াখালী আদালতে একটি মামলা দায়ের করেন।

গৃহবধূ মর্জিনা কান্না জড়িত কন্ঠে জানান, তার স্বামী ও পরিবারের অন্যান্য সদস্যরা যৌতুক লোভী। তাকে এজন্য মারধর করা হয়েছে। তার গলায় থাকা স্বর্ণের চেইন কানের দুল রেখে বাড়ি থেকে তাড়িয়ে দেয়া হয়েছে।তার স্বামী পুনরায় অন্যত্র বিবাহ করেছে। তিনি আদালতে মামলা করলে বিবাদীদের বিরুদ্ধে গ্রেফতারি পরোনা জারি হয়।

লক্ষ্মীপুর জেলার চন্দ্রগঞ্জ থানার এসআই আবুল হোসেন জানান, আদালতের গ্রেফতারি পরোয়ানা থাকায় স্বামী সোহেলকে আটক করে বিজ্ঞ আদালতে পাঠানো হয়েছে।

আরও পড়ুন

  • সোনাইমুড়ী এর আরও খবর