• ঢাকা
  • সোমবার, ১৫ই জুলাই, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ, ৩১শে আষাঢ়, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
প্রকাশিত: ২০ এপ্রিল, ২০২৩
সর্বশেষ আপডেট : ২০ এপ্রিল, ২০২৩

ইউক্রেনকে আরও সামরিক সহায়তা ঘোষণা যুক্তরাষ্ট্রের

ইউক্রেনের জন্য নতুন করে আরও ৩২৫ মিলিয়ন ডলার সামরিক সহায়তা ঘোষণা করেছে যুক্তরাষ্ট্র। নতুন এই প্যাকেজের আওতায় বিভিন্ন ধরনের অস্ত্র থাকছে। মার্কিন প্রতিরক্ষা দপ্তর এক বিবৃতিতে জানিয়েছে, নির্ভুল রকেট সিস্টেম হিমারসসহ অ্যান্টি-ট্যাঙ্ক মাইন এবং ৯০ লাখেরও বেশি ছোট অস্ত্রের গোলাবারুদ রয়েছে।

যুক্তরাষ্ট্র মিত্র দেশগুলোকেও ইউক্রেনের প্রতি সমর্থন প্রদানের আহ্বান জানিয়েছে। ২০২২ সালের ফেব্রুয়ারিতে ইউক্রেনে আকস্মিক হামলা চালায় রাশিয়া।

ওই হামলার পর বিভিন্ন দেশের সমন্বয়ে দ্রুত কিয়েভকে সমর্থন দেওয়ার জন্য একটি আন্তর্জাতিক জোট গঠন করা হয়। মার্কিন প্রতিরক্ষা দপ্তরের তথ্য অনুযায়ী, ইউক্রেনের জন্য এখন পর্যন্ত মোট ৩৫ দশমিক ৪ বিলিয়ন ডলার সামরিক সহায়তা ঘোষণা করা হলো।

এদিকে ইউক্রেনের রুশ-অধিকৃত খেরসন অঞ্চলের কিছু অংশ সফর করেছেন রুশ প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিন। এই সফরকে বিরল সফর বলে সংবাদমাধ্যমে উল্লেখ করা হচ্ছে। এর আগে গত মার্চে তিনি ইউক্রেনের আরেকটি রুশ- অধিকৃত শহর মারিউপোলে আকস্মিক সফরে গিয়েছিলেন।

ক্রেমলিন জানিয়েছে, খেরসনে সেনা কম্যান্ডারদের একটি বৈঠকে যোগ দিয়ে তাদের দেওয়া রিপোর্ট শোনেন পুতিন। এছাড়াও তিনি লুহানস্ক অঞ্চল সফর করেছেন বলে ধারণা করা হচ্ছে।

ক্রেমলিনের প্রকাশ করা এক ভিডিওতে দেখা যায়, পুতিন হেলিকপ্টারে করে এসে খেরসন অঞ্চলের একটি কন্ট্রোল রুমে এক বৈঠকে বক্তব্য রাখছেন।

ভিডিওর আরেকটি অংশে তাকে ভিন্ন পোশাকে অধিকৃত লুহানস্কের ভস্টকে ন্যাশনাল গার্ডের হেডকোয়ার্টার সফর করতেও দেখা যায়।

গত বছর ইউক্রেনের এ দুটি অধিকৃত অঞ্চলকে রাশিয়া তার অধিভূক্ত করে নেয়। খেরসন হচ্ছে ইউক্রেনের একমাত্র আঞ্চলিক রাজধানী যা রাশিয়া ২০২২ এর ফেব্রুয়ারির অভিযানের পর দখল করতে পেরেছিল। কিন্তু বছরের শেষ দিকে রুশ বাহিনী শহরটি ছেড়ে চলে যায়। তবে শহর ত্যাগ করলেও খেরসনের কিছু অঞ্চল এখনো রুশদের দখলে আছে।

আরও পড়ুন

  • . এর আরও খবর