• ঢাকা
  • শনিবার, ১৩ই জুলাই, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ, ২৯শে আষাঢ়, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
প্রকাশিত: ১১ ফেব্রুয়ারি, ২০২৪
সর্বশেষ আপডেট : ১১ ফেব্রুয়ারি, ২০২৪

বাসচাপায় ভবঘুরে নারীসহ শিশু নিহত, ১২ ঘন্টার মধ্যে চালকসহ গ্রেপ্তার ৩

উপজেলা প্রতিনিধি, সদর : সদর উপজেলায় রাস্তা পার হতে গিয়ে বাসচাপায় ভবঘুরে এক বৃদ্ধা ও শিশু নিহতের ঘটনায় ঘাতক বাস চালকসহ তার দুই সহযোগীকে গ্রেপ্তার করেছে র‌্যাব।

শনিবার (১০ ফেব্রুয়ারি) ভোররাতে হবিগঞ্জ জেলা বিশেষ অভিযান পরিচালনা করে সাগরিকা পরিবহনের বাসসহ তাদের গ্রেপ্তার করা হয়।
গ্রেপ্তারকৃতরা হলেন, সিলেট জেলার বালাগঞ্জ উপজেলার মৃত মজমিল আলীর ছেলে বাস চালক মো. মিজানুর রহমান (৩১) ও তার দুই সহযোগী সিরাজ উদ্দিনের ছেলে আবু তাহের (২৬) ও জসিম উদ্দিনের ছেলে তারেক আহমেদ (১৮)।

র‌্যাব সূত্রে জানা যায়, নোয়াখালী পৌরসভার ইসলামিয়া মাদরাসা সংলগ্ন একটি বাসায় ভাড়া নিজের ছেলে-মেয়ে ও স্ত্রীসহ থাকতেন সদর উপজেলার চর করমুল্যাপুর গ্রামের বাসিন্দা ব্যবসায়ী জাকের হোসেন। এক ছেলে ও এক মেয়ের মধ্যে জান্নাতুল ফেরদাউস ছিল বড়। এক ভবঘুরে ভিক্ষুককে দুপুরে জান্নাতের পরিবার দুপুরে খাবার খাওয়ায়। ওই বৃদ্ধা চোখে কম দেখায় শুক্রবার (৯ ফেব্রুয়ারি) বিকেল ৫টা ১৭ মিনিটে ওই বৃদ্ধার সঙ্গে সড়কের এক পাশ থেকে অন্য পাশে পার হওয়ার সময় সোনাপুর থেকে ছেড়ে আসা দ্রুতগতির সিলেটগামী সাগরিকা যাত্রীবাহী বাস জান্নাতুলসহ তাদের দুইজনকে চাপা দেয়। স্থানীয় লোকজন উদ্ধার করে নোয়াখালী জেনারেল হাসপাতালে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত চিকিৎসক দুইজনকে মৃত ঘোষণা করেন। ঘটনাটি জানতে পেরে ১২ ঘন্টার মধ্যে বাসটি খুঁজে বের করে র‌্যাব-১১, সিপিসি-৩ নোয়াখালী ও র‌্যাব-৯ সিপিসি-৩ হবিগঞ্জ। পরবর্তীতেতে হবিগঞ্জ জেলার সদর থানা এলাকায় অভিযান পরিচালনা করে বাসসহ ঘাতক চালক ও দুই সহযোগীকে গ্রেপ্তার করা হয়।

শনিবার (১০ ফেব্রুয়ারি) সকালে র‌্যাব-১১ সিপিসি-৩ নোয়াখালীর স্কোয়াড কমান্ডার সহকারী পুলিশ সুপার মো. গোলাম মোর্শেদ বিষয়টি নিশ্চিত করেন। তিনি বলেন, র‌্যাব ১১ ও র‌্যাব ৯ এর যৌথ অভিযানে সাগরিকা বাস, ঘাতক চালক ও তার দুই সহযোগীকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। সিলেট থেকে তাদের নোয়াখালী আনা হচ্ছে। এঘটনায় সুধারাম মডেল থানায় একটি হত্যা মামলা হয়েছে। সে মামলায় তাদের কারাগারে সোপর্দ করা হবে।

আরও পড়ুন

  • . এর আরও খবর