• ঢাকা
  • মঙ্গলবার, ১৬ই জুলাই, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ, ১লা শ্রাবণ, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
প্রকাশিত: ৭ জুলাই, ২০২৪
সর্বশেষ আপডেট : ৭ জুলাই, ২০২৪

মাইজদীতে যুব মহিলা লীগের ২২তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উদযাপন

উপজেলা প্রতিনিধি, নোয়াখালী সদর: জেলা শহর মাইজদীতে আওয়ামী লীগের অঙ্গসংগঠন যুব মহিলা লীগের ২২তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উপলক্ষে এক আলোচনা সভার আয়োজন করা হয়। জেলা যুব মহিলা লীগের যুগ্ম আহবায়ক আরমান আক্তার মুনার নেতৃত্বে শনিবার (৬ জুলাই) বিকাল ৫টায় এই আলোচনা সভায় প্রধান অতিথি ছিলেন জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান এবং পৌর আওয়ামী লীগের সভাপতি আবদুল ওয়াদুদ পিন্টু। বিশেষ অতিথি ছিলেন বীর মুক্তিযোদ্ধা মিয়া মোহাম্মদ শাহজাহান।

আলোচনা সভার শুরুতে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের প্রতিকৃতিতে পুষ্পস্তবক অর্পণ করে জেলা যুব মহিলা লীগের যুগ্ম আহবায়ক আরমান আক্তার মুনা, উপস্থিত ছিলেন সদর উপজেলা যুব মহিলা লীগরে আহবায়ক সালমা বেগম, সদর উপজেলার যুগ্ম আহবায়ক ফরিদা ইয়াসমিন পলি, বেগমগঞ্জ উপজেলার যুগ্ম আহবায়ক নমিতা সাহা, বেগমগঞ্জ উপজেলার যুগ্ম আহবায়ক খুকুমণি, সোনাইমুড়ী উপজেলার আহ্বায়ক নদী আক্তার নারগিস, সেনবাগ উপজেলার সাধারণ সম্পাদিকা দিলরুবা আক্তার তুহিন।

বিশেষ অতিথির বক্তব্যে বীর মুক্তিযোদ্ধা মিয়া মোহাম্মদ শাহজাহান বলেন, যুব মহিলা লীগের প্রতিষ্ঠার ২২ বছর ফূর্তিতে জেলা যুব মহিলা লীগের আরমান আক্তার মুনাকে ২০০৮ সালে বিএনপি জামায়াতের বিরুদ্ধে শ্লোগান শ্লোগানে যখন এগিয়ে যাচ্ছে, তখন তাকে বিএনপি ও শিবিরের উগ্রবাদীরা তুলে নিয়ে যাচ্ছিল, আমাদের যুবলীগ ছাত্রলীগের নেতাকর্মীরা তাকে উদ্ধার করে। বাংলাদেশের মা, বোনদের যখন পাক হানাদার ও রাজাকারের দল নির্মম ভাবে সম্রম হানি করে হত্যা করে, সেই দিনও আমরা তাদের সম্রম রক্ষা করতে যুদ্ধে ঝাপিয়ে পড়ি। আমাদের মা, বোনদের সেই মুক্তিযুদ্ধের চেতনায় সচেতন করতে হবে এবং শক্তশালী করতে হবে। যুব মহিলা লীগ শক্তিশালী হলে বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের মহামান্য সভাপতি মাননীয় প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনার হাত শক্তিশালী হবে।

প্রধান অতিথির বক্তব্যে পৌর আওয়ামী লীগের সভাপতি এবং জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান আবদুল ওয়াদুদ পিন্টু বলেন, বাংলাদেশ যুব মহিলা লীগ প্রতিষ্ঠার পর জননেত্রী শেখ হাসিনার দিক নির্দেশনা অনুকরণ করে আমরা জেলায় সংগঠনটি প্রতিষ্ঠিত করেছি। প্রতিটি নির্বাচনে যু্ব মহিলা লীগের নেত্রীরা জনগণের কাছে গিয়ে জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের বাংলাদেশের স্বাধীনতার অবদান এবং জননেত্রী শেখ হাসিনার উন্নয়ন সমৃদ্ধি সম্পর্কে জনগণকে সচেতন করার কাজ করে। তাই আমি জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি অধ্যক্ষ এ এইচ এম খায়রুল আনম চৌধুরী সেলিম এবং জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এবং নোয়াখালী পৌরসভার মেয়র সহিদ উল্যাহ খান সোহেলের সাথে আলাপ আলোচনা করে আমরা যুব মহিলা লীগকে আরো শক্তিশালী করবো। যুব মহিলা লীগকে শক্তিশালী করতে পারলে গ্রামের বাড়িতে বাড়িতে গিয়ে মা, বোনদের জাতির পিতা অবদান এবং জননেত্রী শেখ হাসিনার উন্নয়ন সম্পর্কে বুঝাতে আরো সহজ হবে।
তিনি বলেন, যুব মহিলা লীগের নেতৃদের যেই কোন রকম সাংগঠনিক বিষয়ে আমাদের কাছে আসলে আমরা সহযোগিতা করেছি এবং যতদিন আসবে ততদিন আমরা জেলা আওয়ামী লীগ ও পৌর আওয়ামী লীগ সহযোগিতা করবো।

অনুষ্ঠান সঞ্চালনা করেন জেলা যুব মহিলা লীগের সাধারণ সম্পাদক আরমান আক্তার মুনা।

আরও পড়ুন