• ঢাকা
  • শনিবার, ১৩ই জুলাই, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ, ২৯শে আষাঢ়, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
প্রকাশিত: ১৬ জানুয়ারি, ২০২৪
সর্বশেষ আপডেট : ১৬ জানুয়ারি, ২০২৪

পরাজিত প্রার্থীর পোলিং এজেন্টকে হত্যা, গ্রেফতার ৩ আসামি কারাগারে

উপজেলা প্রতিনিধি, সোনাইমুড়ি : নোয়াখালী-২ (সেনবাগ ও সোনাইমুড়ী) আসনে আওয়ামী লীগের স্বতন্ত্র প্রার্থীর পোলিং এজেন্ট শাহেদুজ্জামান পলাশকে (৩৫) কুপিয়ে হত্যার ঘটনায় গ্রেপ্তারকৃত ৩ আসামিকে কারাগারে প্রেরণ করা হয়েছে।

সোমবার (১৫ জানুয়ারি) বিকেলে চীফ জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে সোপর্দ করলে আমলি আদালত-১ এর সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট এস এম মোসলে উদ্দিন মিজান তাদের কারাগারে প্রেরণের নির্দেশ প্রদান করেন। এর আগে গতকাল রোববার (১৪ জানুয়ারি) রাত থেকে আজ সোমবার (১৫ জানুয়ারি) সকাল পর্যন্ত পৃথক স্থানে অভিযান চালিয়ে তাদের গ্রেপ্তার করা হয়।

আদালতে প্রেরণকৃতরা হচ্ছেন, সোনাইমুড়ী উপজেলার নাটেশ্বর ইউনিয়নের ৪নং ওয়ার্ড মনসুর আলী বেপারি বাড়ির হাজী আবুল কাশেমের ছেলে আহসান উল্যাহ প্রকাশ কল্লা হাসান (৩৮), একই ওয়ার্ডের অজি উল্যাহর ছেলে আকবর হোসেন সোহেল (৩৬) ও পূর্ব মির্জা নগর গ্রামের নূর নবীর ছেলে মারিজ (২১)।

সোনাইমুড়ী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মোহাম্মদ বখতিয়ার উদ্দিন চৌধুরী বলেন, গত শনিবার রাতে পূর্ব মির্জা নগর গ্রামের নিজ বাড়িতে খুন হয় শাহিদুজ্জামান পলাশ। হত্যাকারীরা তাকে গুলি করে হত্যার পর তার বাড়ির মুরগির খামারের কাছে ফেলে যায়। পরে স্থানীয় লোকজনের তথ্যের ভিত্তিতে আমরা নিহতের মৃতদেহ উদ্ধার করি। এ ঘটনায় নিহতের স্ত্রী শারমিন আক্তার বাদী হয়ে অজ্ঞাত একাধিক ব্যক্তিকে আসামি করে একটি হত্যা মামলা দায়ের করেন।

বখতিয়ার উদ্দিন চৌধুরী আরও বলেন, তথ্য প্রযুক্তির ব্যবহার করে এ ঘটনায় জড়িত থাকার সন্দেহে তিনজনকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে আসামিরা ঘটনার সময় ঘটানাস্থলে অবস্থান করার বিষয়টি স্বীকার করেছে। তাদের তিনজনের রিমান্ডের আবেদন করা হয়েছে। গ্রেপ্তারকৃত আসামিদের বিরুদ্ধে থানায় আগের একাধিক মামলা রয়েছে।

নোয়াখালীর চীফ জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতের পরিদর্শক (কোর্ট ইন্সপেক্টর) মো. শাহ আলম কারাগারে প্রেরণের বিষয়টি নিশ্চিত করেন।

তিনি বলেন, বিকেলে চীফ জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে আসামিদের সোপর্দ করা হয়। তারপর আমলি আদালত-১ এর সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট এস এম মোসলে উদ্দিন মিজান তাদের কারাগারে প্রেরণের নির্দেশ প্রদান করেন।

প্রসঙ্গত, গত শনিবার (১৩ জানুয়ারি) রাত ১০টার দিকে সোনাইমুড়ী উপজেলার নাটেশ্বর ইউনিয়নের ৮ নম্বর ওয়ার্ডের পূর্ব মির্জানগর গ্রামে শাহেদুজ্জামান পলাশকে (৩৫) কুপিয়ে হত্যা করে দুর্বৃত্তরা। খবর পেয়ে রাত সাড়ে ১১টার দিকে সোনাইমুড়ী থানার পুলিশ মরদেহ উদ্ধার করে। তবে কে বা কারা খুন করেছেন, তা তাৎক্ষণিকভাবে নিশ্চিত হতে পারেনি পুলিশ।

নিহত শাহেদুজ্জামান পলাশ সোনাইমুড়ী উপজেলার নাটেশ্বর ইউনিয়নের পূর্ব মির্জানগর গ্রামের মো. জামাল উদ্দিনের ছেলে। শাহেদুজ্জামান পূর্ব মির্জানগর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের কেন্দ্রে কাঁচি প্রতীকের পোলিং এজেন্ট ছিলেন বলে জানিয়েছেন আওয়ামী লীগের স্বতন্ত্র প্রার্থী আতাউর রহমান ভূঁইয়া মানিক।

পুলিশ ও স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, শাহেদুজ্জামান বিদেশে থাকতেন। দেশে আসার পর এলাকায় মাছ ও মুরগির খামার করেন। স্ত্রী নিয়ে তিনি শ্বশুরবাড়িতে থাকতেন। দিনের বেলায় নিজের বাড়িতে আসতেন এবং খামার দেখাশোনা করতেন। শনিবার (১৩ জানুয়ারি) রাত সাড়ে ৮টার দিকে শাহেদুজ্জামানের সঙ্গে তার স্ত্রীর মুঠোফোনে ভিডিও কলে সর্বশেষ কথা হয়েছিল। নিজের বাড়ি থেকে শ্বশুরবাড়ি আসার পথে রাত ১০টার দিকে পূর্ব মির্জানগর গ্রামের নিজ বাড়ির পাশের খালি জায়গায় রক্তাক্ত অবস্থায় শাহেদুজ্জামানের মরদেহ পড়ে থাকতে দেখেন প্রতিবেশীরা। তার কপাল ও মুখে ধারালো অস্ত্রের আঘাত দেখা গেছে। স্থানীয় লোকজন তাৎক্ষণিকভাবে বিষয়টি সোনাইমুড়ী থানা পুলিশকে অবহিত করেন। পরে পুলিশ ঘটনাস্থলে পৌঁছে সুরতহাল প্রতিবেদন তৈরি শেষে মরদেহ উদ্ধার করে নিয়ে যায়।

আরও পড়ুন

  • সোনাইমুড়ী এর আরও খবর