• ঢাকা
  • মঙ্গলবার, ১৬ই জুলাই, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ, ১লা শ্রাবণ, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
প্রকাশিত: ১৪ মার্চ, ২০২৪
সর্বশেষ আপডেট : ১৪ মার্চ, ২০২৪

তরুণীকে অপহরণ করে গণধর্ষণ, র‌্যাবের হাতে ধর্ষক গ্রেপ্তার

উপজেলা প্রতিনিধি, হাতিয়া : দ্বীপ উপজেলা হাতিয়া ১৫ বছরের এক তরুণীকে অপহরণের পর গণধর্ষণের ঘটনায় দিদার উদ্দিন কামাল (৩৫) নামের এজহারনামীয় এক আসামিকে গ্রেপ্তার করেছে র‌্যাব। বৃহস্পতিবার (৭ মার্চ) রাতে তথ্যপ্রযুক্তির সহযোগিতায় বেগমগঞ্জ উপজেলার পৌর বাস টার্মিনাল এলাকায় অভিযান পরিচালনা করে তাকে গ্রেপ্তার করা হয়।

গ্রেপ্তারকৃত দিদার উদ্দিন কামাল দ্বীপ উপজেলা হাতিয়ার বুড়িরচর ইউনিয়নের ১ নং ওয়ার্ডের কাজিরবাজার এলাকার জয়নাল আবেদিনের ছেলে।

জানা গেছে, গত ২ মার্চ দিদার উদ্দিন কামাল, রবিউল হোসেন, আব্দুস সহিদ তরুণীকে অপহরণ করে একটি টিন শেড ঘরে নিয়ে পালাক্রমে জোরপূর্বক গণধর্ষণ করে। ৪ মার্চ ভুক্তভোগীর বাবা বাদী হয়ে হাতিয়া থানায় মামলা দায়ের করেন। মামলার পর ছায়া তদন্তে নেমে র‌্যাব-১১ এজহারনামীয় আসামি দিদার উদ্দিন কামালকে গ্রেপ্তার করে।
ভুক্তভোগীর বাবা (৫০) বলেন, আমার মেয়েকে দীর্ঘদিন ধরে আসামিরা প্রেমের প্রস্তাবসহ কুপ্রস্তাব দিতো। আমি বিষয়টি স্থানীয়দের জানিয়েছিলাম। আমি কৃষি কাজে জমিতে ছিলাম। গত ২ মার্চ সকালে আমার মেয়েকে তারা অপহরণ করে নিয়ে যায়। স্থানীয় একটি এনজিও অফিসের পাশে টিনশেডের রুমে নিয়ে গিয়ে পালাক্রমে ধর্ষণ করে। ৩ মার্চ সকালে আসামিরা মোটরসাইকেলে আমার মেয়েকে বাড়ির সামনে নামিয়ে দিয়ে পালিয়ে যায়। আমি ৪ মার্চ হাতিয়া থানায় মামলা দায়ের করেছি। আমি আসামিদের দৃষ্টান্ত মূলক শাস্তির দাবি জানাচ্ছি।

র‌্যাব-১১ সিপিসি-৩ নোয়াখালীর কোম্পানি কমান্ডার (ভারপ্রাপ্ত) সহকারী পুলিশ সুপার মো. গোলাম মোর্শেদ বিষয়টি নিশ্চিত করে বলেন, বিশেষ অভিযানে দিদার উদ্দিন কামালকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে সে ঘটনার সাথে জড়িত থাকার কথা স্বীকার করে। তার বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণের জন্য নোয়াখালী জেলার হাতিয়া থানায় হস্তান্তর করা হয়েছে।

হাতিয়া থানা পুলিশের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. জিসান আহমেদ বলেন, আসামি কামালকে র‌্যাব-১১ আমাদের কাছে হস্তান্তর করেছে। আমরা তাকে বিচারিক আদালতে সোপর্দ করেছি। বিচারক তাকে কারাগারে প্রেরণের নির্দেশ প্রদান করেন। মামলার অপর আসামিদের গ্রেপ্তারে অভিযান অব্যাহত আছে।

আরও পড়ুন