• ঢাকা
  • সোমবার, ১৫ই জুলাই, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ, ৩১শে আষাঢ়, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
প্রকাশিত: ৮ ফেব্রুয়ারি, ২০২৪
সর্বশেষ আপডেট : ৮ ফেব্রুয়ারি, ২০২৪

মা-মেয়েকে ধর্ষণ : আওয়ামী লীগ নেতা আবুল খায়েরকে দল থেকে বহিষ্কার

উপজেলা প্রতিনিধি, সুবর্ণচর : সুবর্ণচরে সিঁধ কেটে মা-মেয়েকে দলবদ্ধ ধর্ষণের মামলায় গ্রেফতার প্রধান আসামি আবুল খায়ের ওরফে মুন্সি মেম্বারকে (৬৭) আওয়ামী লীগ থেকে বহিষ্কার করা হয়েছে। তিনি চরওয়াপদা ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতির দায়িত্বে ছিলেন।

বুধবার (৭ ফেব্রুয়ারি) সন্ধ্যায় সুবর্ণচর উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক মো. হানিফ চৌধুরী বহিষ্কারের বিষয়টি নিশ্চিত করেন।
তিনি বলেন, ঘটনার খবর পেয়ে দলের জরুরি সভা ডেকে সর্বসম্মতিক্রমে তাকে বহিষ্কারের সিদ্ধান্ত হয়। নির্দোষ প্রমাণিত না হওয়া পর্যন্ত দলের সব কর্মকাণ্ড থেকে তাকে বিরত থাকার জন্য বলা হয়েছে।

আবুল খায়ের (৬৭) সুবর্ণচরের চরওয়াপদা ইউনিয়নের ৫ নম্বর ওয়ার্ডের চরকাজী মোখলেছ গ্রামের মৃত গোলাপের রহমানের ছেলে। মঙ্গলবার (৬ ফেব্রুয়ারি) চরজব্বার থানায় করা ধর্ষণ মামলার প্রধান আসামি হিসেবে তাকে গ্রেফতার করা হয়েছে।

এর আগে সোমবার (৫ ফেব্রুয়ারি) দিনগত রাত ২টায় বাড়িতে মা-মেয়েকে একা পেয়ে সিঁধ কেটে একজন ঘরে ঢুকে দরজা খুলে দেন। পরে আরও দুজন ঘরে ঢুকে তিন সন্তানের মা (৩০) ও তার পঞ্চম শ্রেণি পড়ুয়া মেয়ের (১২) ওপর পাশবিক নির্যাতন চালান। পরে ৯৯৯ নম্বরে কল পেয়ে চরজব্বার থানার পুলিশ গিয়ে ঘটনাস্থল থেকে ভুক্তভোগীদের উদ্ধার করে।

এ ঘটনায় ভুক্তভোগী নারী বাদী হয়ে চরজব্বার থানায় দলবদ্ধ ধর্ষণ ও নগদ টাকাসহ স্বর্ণালংকার লুটের মামলা করেন। মামলায় ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি আবুল খায়ের প্রকাশ মুন্সি মেম্বারকে প্রধান আসামি করা হয়।
মামলায় অপর আসামিরা হলেন চর কাজী মোখলেছ গ্রামের মৃত বশির আহম্মদের ছেলে গরু বেপারী মো. হারুন (৪২)। অপরজন অজ্ঞাত।

এ মামলায় প্রধান আসামি মুন্সি মেম্বার ও মেহেরাজ (৪৮) নামের একজনকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। তাদের আদালতের মাধ্যমে কারাগারে পাঠানো হয়েছে।

আরও পড়ুন